এইচএসসি পরীক্ষা পেছানোর নীতিগত সিদ্ধান্ত

img

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ 

করোনাভাইরাসের কারণে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা পেছানোর নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এ ব্যাপারে আজকালের মধ্যেই ঘোষণা আসতে পারে বলে জানিয়েছে মন্ত্রণালয় সূত্র।

সূত্র জানায়, সবগুলো শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের নিয়ে গত বৃহস্পতিবার সভা করেছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি। ওই সভায় এবারের এইচএসসি পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। এ বিষয়ে মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নিয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হবে।

গতকাল শনিবার এইচএসসি পরীক্ষার পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ কার্যক্রম আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করছে শিক্ষা বোর্ডগুলো। পরীক্ষার্থীদের বাড়িতে অবস্থান করে পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক জানান, আসন্ন এইচএসসি পরীক্ষার সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে সারাদেশে প্রশ্নপত্রও পাঠানো হয়ে গেছে। তবে, করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে, পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়া নিয়ে স্বাভাবিকভাবেই অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। শিক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের মধ্যেও বিষয়টি নিয়ে দুঃশ্চিন্তা দেখা দিয়েছে। পরীক্ষাসংক্রান্ত সিদ্ধান্তটি আজ বা আগামীকালের মধ্যেই শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দেয়া হবে।

আগামী ১ এপ্রিল থেকে ৪ মে পর্যন্ত এইচএসসির তত্ত্বীয় এবং ৫ থেকে ১৩ মে’র মধ্যে সব ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ করার সূচি নির্ধারিত আছে।

তবে করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে গত ১৬ মার্চ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করে সরকার।ওই দিন এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছিলেন, এই পরীক্ষা শুরুর আগে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

কতদিন পরীক্ষা পেছানো হবে সে বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি। কতদিন এমন সংকট থাকবে সেটিও নিশ্চিত নয়। তাই স্থগিত করার প্রস্তাব করা হতে পারে। পরে শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে যে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে সেটি বাস্তবায়ন করা হবে।

ঢাকা শিক্ষাবোর্ডের সংশ্লিষ্ট একজন কর্মকর্তা জানান, করোনাভাইরাসের জন্য এইচএসসি পরীক্ষা ১ এপ্রিল শুরু না করে এটি ঈদুল ফিতরের পর আয়োজন করার প্রস্তাব দেয়া হতে পারে। এরপর সুবিধামতো সময়ে এ পরীক্ষা আয়োজন করা যেতে পারে। তবে শিক্ষার্থীরা যাতে সেশনজটে না পড়ে, সেটি মাথায় রেখে এইচএসসি পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি প্রকাশ করা হবে।