সারাবিশ্বে করোনায় মৃত্যু ১৮ হাজার ছাড়িয়েছে

img

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

মহামারী করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দ্রুতগতিতে বাড়ছে। সারাবিশ্বে আজ পর্যন্ত ৪ লাখের অধিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছে মানুষ। আর মৃত্যু হয়েছে ১৮ হাজার ২৫০ জন। দুদিন আগেও যে মৃত্যুর শতকরা হার ছিলো ৭-১০ এর ঘরে। আজকে এসে তা ১৫ শতাংশে দাঁড়াল।

আজও একদিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর খবর এসেছে ইউরোপের দেশ ইটালি এবং স্পেন থেকে।

ইটালিতে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ৭৪৩ জন। আক্রান্ত হয়েছে ৫ হাজার ২৪৯ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৬৯ হাজার ১৭৬ জন। আর মোট মারা গেছে ৬ হাজার ৮২২ জন।

আজ একদিনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মৃত্যু হয়েছে স্পেনে। ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মারা গেছে ৪৮৯ জন মানুষ।  আক্রান্ত হয়েছে ৪ হাজার ৫৪০ জন। স্পেনে মোট করোনায় আক্রান্ত ৩৯ হাজার ৬৭৬ জন। মোট মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৮০০ জনের।

এশিয়ার দেশ ইরানে ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছে ১২২ জন। আক্রান্ত হয়েছে ১ হাজার ৭৬২ জন। দেশটিতে মোটে আক্রান্তের সংখ্যা -২৪ হাজার ৮১১ জন। মোট মারা গেছে ১ হাজার ৯৩৪ হাজার।

গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেছে ৬৯ জন এবং যুক্তরাজ্যে ৮৭ জন। ফ্রান্সের আক্রান্ত ও মৃত্যুর খবর এখনো পাওয়া যায়নি। সে সংখ্যাটি আসলে আজকের মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা আরো বেড়ে যেতে পারে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বিশ্ব মহামারী করোনা আরো দ্রুতগতিতে বাড়ছে। মৃত্যুর হার ও আক্রান্তের হার বেড়ে যাচ্ছে।বিশ্ববাসীকে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়েছেন সংস্থাটির প্রধান।

করোনার ভয়াবহ থাবাায় এখন পুরো বিশ্ব লকডাউনের পথে। ইতোমধ্যে সম্পূর্ণ লকডাউনে চলে গেছে যুক্তরাজ্য। আজকে ২১ দিনের দীর্ঘ লকডাউনের ঘোষণা দিয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ইটালি, ইরান, স্পেন, ফ্রান্সসহ বিশ্বের বহ দেশ আগে থেকেই লকডাউন।

চীনে উদ্ভূত করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রতিদিনই বাড়ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৯৭টি দেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়েছে।

করোনা ভাইরাস পৃথিবীজুড়ে অদ্ভুত এক আঁধারের ছায়া নিয়ে এসেছে। চারিদিক নিরব, নিস্তব্ধ। কেউ কারও সাথে মিশছে না বা চাইছে না। যেন সবাই সবাইকে এড়িয়ে যেতে পারলেই বাঁচে। ‘বিশ্ব গ্রাম’ ধারণায় মানুষ অনেক বছর ধরেই একাকি জীবনের অভ্যস্ত হয়ে উঠছিল। কিন্তু এতটা একাকি হয়তো তারা কখনোই হয়নি। যে চাইলেও তারা একে অন্যের সাথে দেখা করতে পারবে না। সবাই যেন এক যুদ্ধ কেন্দ্রীক জরুরি অবস্থায় রয়েছে।
 
এক করোনা ভাইরাস পুরো বিশ্বকেই যেন স্তব্ধ করে দিয়েছে। অধিকাংশ দেশেই রাস্তা-ঘাট, অফিস-আদালত, শপিংমল-মার্কেট, রেস্তোরাঁ-বার ফাঁকা। যেন সব ভূতুড়ে নগরী, যুদ্ধকালীন জরুরি অবস্থা চলছে। সবার মধ্যে ভয়, আতঙ্ক আর আশঙ্কা।

এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলা ব্যথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সঙ্গে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে।