সরকারি চাকরিতে বয়সে ছাড় দিলো সরকার

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

দেশে মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে সরকারি চাকরি প্রত্যাশীদের বয়সে ৫ মাস ছাড় দিয়েছে সরকার। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে সরকারি চাকরি প্রার্থীদের এ সুযোগ দেয়া হচ্ছে। 

প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে সরকারি চাকরিপ্রত্যাশীদের এই সুযোগ দেয়া হচ্ছে বলে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন মঙ্গলবার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন। ইতিমধ্যে এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘চলতি বছরের গত ২৫ মার্চ যাদের বয়স ৩০ বছর হবে তারা আগস্ট পরবর্তী সময়ের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে আবেদন করার সুযোগ পাবেন। করোনার দুর্যোগকালীন ৩০ বছর পেরিয়ে যাওয়া প্রার্থীদের চাকরির আবেদনে সরকার ৫ মাসের এই সময় ছাড় দিয়েছে।’

ফরহাদ হোসেন বলেন, ‘গত ২৬ মার্চের পর এপ্রিল, মে, জুন, জুলাই ও আগস্ট পর্যন্ত- এই ৫ মাস যেসব মন্ত্রণালয় চাকরির জন্য বিজ্ঞাপন দিতে পারেনি, তারা আগস্টের পর থেকে বিজ্ঞপ্তি দিচ্ছে। সেক্ষেত্রে চাকরি প্রার্থী যারা থাকবে তাদের বয়স ২৫ মার্চ ৩০ বছর হতে হবে।’

আবেদনকারীদের জন্য এ সুবিধা গত আগস্ট মাস পর্যন্ত থাকবে বলে জানান জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘করোনার কারণে বন্ধের মধ্যে মন্ত্রণালয়, বিভাগ কিংবা সংস্থার চাকরির জন্য বিজ্ঞপ্তি দিতে পারেনি। অনেকের চাকরির বয়স এই সময়ের মধ্যে চলে গেছে। সেক্ষেত্রে তারা ৫ মাসের বয়সের একটা ছাড় পাবেন। আগস্ট পর্যন্ত বিজ্ঞপ্তিগুলোতে আবেদন করতে পারবেন তারা।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘যদি করোনার ছুটির সময় কোনও পরীক্ষার হওয়ার কথা থাকে, কোনও বিজ্ঞপ্তি জারির কথা থাকে, এজন্য যদি কেউ ক্ষতিগ্রস্ত হয় এবং তাদের বিষয়টি বিবেচনার জন্য যদি আইনগত কোনও বাধ্যবাধকতা থাকে- তবে সে বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী বিবেচনা করতে পারেন।’

বর্তমানে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩০ বছর, মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে ৩২ বছর। প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির চাকরিতে সরকারি কর্ম কমিশনের (পিএসসি) মাধ্যমে নিয়োগ দেয়া হয়। তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির পদগুলোতে নিয়োগের দায়িত্ব থাকে সংশ্লিষ্ট সরকারি দফতরগুলোর। 

বাংলাদেশে কোভিড-১৯ এর বিস্তার বাড়তে থাকায় গত ২৬ মার্চ থেকে টানা ৬৬ দিন সাধারণ ছুটির মধ্যে কোনো নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেনি সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি)। এর আগে গত ডিসেম্বর থেকে চাকরিতে নিয়োগের নতুন কোনো বিজ্ঞপ্তি দেয়নি কমিশন।