নিজ মাদরাসায় চিরনিদ্রায় শায়িত আল্লামা শফী

img

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:

 

চট্টগ্রামের ঐতিহ্যিবাহী কওমি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হাটহাজারীর ‘আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদ্রাসা’র প্রাঙ্গনেই শেষ ঠিকানা হলো প্রতিষ্ঠানটির সদ্য সাবেক মহাপরিচালক ও হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফীর। যে প্রতিষ্ঠানে ১৯৮৬ সাল থেকে জীবনের শেষ দিনটি পর্যন্ত প্রায় ৩৪ বছর ধরে নেতৃত্ব দিয়েছেন সেই প্রতিষ্ঠান প্রঙ্গণেই চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন তিনি।

হাটহাজারী মাদরাসায় শুরা কমিটির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, শনিবার দুপুরের পর আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মরদেহ জানাজা শেষে মাদরাসা ক্যাম্পাসের অভ্যন্তরে বায়তুল আতিক জামে মসজিদের সামনের কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এর আগে শনিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) বাদ জোহর হাটহাজারীতে আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম মাদরাসা মাঠে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আসা আলেম, শিক্ষার্থী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের উপস্থিতিতে মরহুমের নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। যদিও অনেক আগেই এ জানাজাকে কেন্দ্র করে লোকে লোকারণ্য হয়ে ওঠে আল জামিয়াতুল আহলিয়া দারুল উলূম মঈনুল ইসলাম মাদরাসা সংলগ্ন হাটহাজারী এলাকা।

লাখো মানুষের অংশগ্রহণে দেশের প্রখ্যাত আলেম ও হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা আহমদ শফীর জানাজা সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার বেলা দুইটার কিছু পর চট্টগ্রামের দারুল উলুম মঈনুল ইসলাম হাটহাজারী মাদ্রাসায় তার নামাজে জানাজা সম্পন্ন হয়। 

নামাজে জানাজায় ইমামতি করেন মরহুমের বড় ছেলে রাঙ্গুনিয়া পাখিয়ারটিলা কওমী মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা মোহাম্মদ ইউসুফ মাদানি। এর আগে সকাল ৯টায় তার মরদেহবাহী গাড়িটি মাদরাসা প্রাঙ্গণে এসে পৌঁছায়। শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে রাজধানীর আসগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন হেফাজতে ইসলামের আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী।