আপাতত বন্ধ হচ্ছে না ডিস ও ইন্টারনেটসেবা

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সারাদেশে বাসাবাড়ি, অফিস ও ব্যাংকসহ সব পর্যায়ে ইন্টারনেট ডাটা কানেক্টিভিটি এবং ক্যাবল টিভি বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত করা হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় ভার্চুয়াল মাধ্যমে ডাকা জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ সিদ্ধান্তের কথা জানায় সংগঠন দুটি। সরকারের আশ্বাসে অবশেষে সংযোগ বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এলো ইন্টারনেট সেবাদাতাদের সংগঠন আইএসপিএবি ও ডিস নেটওয়ার্ক সেবাদাতাদের সংগঠন কোয়াব। 

সড়কে ঝুলন্ত ক্যাবল ও ডিস সংযোগের তার কাটার প্রতিবাদে ১৮ অক্টোবর থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত সারাদেশে ইন্টারনেট সেবা ও ক্যাবল নেটওয়ার্ক সংযোগ বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল আইএসপিএবি ও কোয়াব। সেই সিদ্ধান্তের বিষয়ে আজ সন্ধ্যায় জরুরি সংবাদ সম্মেলন ডাকে ইএসপিএবি ও কোয়াব।

সংবাদ সম্মেলনে সংযুক্ত হয়ে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সংগঠন দুটির নেতাদের কাছে ধর্মঘট কর্মসূচি প্রত্যাহারের আহ্বান জানান। তিনি বলেন, ‘আপনার আরও কয়েকটা দিন আমাদের সময় দেন, যাতে আমরা এই সমস্যাটার অত্যন্ত সম্মানজনক সমাধান করতে পারি।’

মন্ত্রী বলেন, ‘করোনাকালে আইএসপিগুলো নিরবচ্ছিন্নভাবে ইন্টারনেট সেবা দিয়েছে। কোয়াব ঘরে ঘরে ডিস সংযোগ পৌঁছে দিয়েছে। ফলে এদের বিরুদ্ধে বিরূপ আচরণ নয়।’ মন্ত্রী আরও বলেন, ‘সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে আমি এটুকু সবাইকে আশ্বস্ত করতে পারি— যৌক্তিক সিদ্ধান্ত না হওয়া পর্যন্ত আর কোনও ক্যাবল কাটা হবে না।’

সংবাদ সম্মেলনটি সঞ্চালনা করেন আইএসপিএবি সভাপতি আমিনুল হাকিম। সংবাদ সম্মেলনে আরও যুক্ত ছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব আফজাল হোসেন, আইএসপিএবির সাধারণ সম্পাদক ইমদাদুল হক, সহ-সভাপতি জুনায়েদ আহমেদ, কোয়াবের সভাপতি এসএম আনোয়ার পারভেজসহ দুই সংগঠনের সদস্য ও নেতারা।

আইসিটি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টার সঙ্গে কথা বলেছি। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়রের সঙ্গেও কথা বলবো। আমি আইএসপিএবি ও কোয়াবের নেতাদের কাছে অনুরোধ করছি, আপনারা কঠোর অবস্থান থেকে সরে আসুন। আপনারা আমাদের সাতটা দিন সময় দিন। এরই মধ্যে আমরা সবাই মিলে একটা যৌক্তিক সমাধানে পৌঁছাতে পারবো।’

পরে ইন্টারনেট ও ডিস সংযোগ বন্ধের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার কথা ঘোষণা করে আইএসপিএবি ও কোয়াব।