ডোপ টেস্ট, চাকরি গেল ৮ পুলিশের

img

মফস্বল প্রতিবেদক:

ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের বিষয়টি প্রমাণ হওয়ায় কুষ্টিয়ায় কর্মরত ৮ পুলিশ সদস্যকে চাকুরিচ্যুত করা হয়েছে। বহিষ্কৃতদের মধ্যে দুজন উপ-পরিদর্শক (এসআই), দুজন সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) এবং বাকি চারজন কনস্টেবল পর্যায়ের। পাশাপাশি মাদক সেবন বিষয়ে এক সার্জেন্টসহ দুজনের বিষয়ে তদন্ত চলছে বলেও জানা গেছে। 

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সেখানকার বর্তমান পুলিশ সুপার (এসপি) এসএম তানভীর আরাফাত দায়িত্ব নেয়ার পর মাদক ব্যবসায়ী, সেবনকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেন। এমনকি পুলিশে কারা কারা মাদক সেবনকারী সেটিও খুঁজে বের করার নির্দেশ দেন। 

এরপর পুলিশের মহাপরিদর্শকের (আইজিপি) নির্দেশে চিহ্নিত পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্ট করার উদ্যোগ নেন এসপি তানভীর।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়ার এসপি এসএম তানভীর আরাফাত বলেন, ‘মাদকের সঙ্গে কোনও আপস নয়। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইজিপিও মাদসের সঙ্গে জড়িত পুলিশ সদস্যদের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। তাই পুলিশেও শুদ্ধি অভিযান চলছে। পুলিশ ডিপার্টমেন্টে কোনও মাদক সেবনকারী থাকতে পারে না।’

গেল বছরের মে মাসে কুষ্টিয়ার এসপি সন্দেহভাজন ও গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্ট করানোর নির্দেশ দেন। তখনও এসব সদস্যদের নিয়মিত মাদস সেবনের রিপোর্ট আসে। এরপর গত দেড় বছরে পর্যায়ক্রমে ১১ জন পুলিশ সদস্যের ডোপ টেস্ট করা হলে ৯ জনই মাদক সেবনকারী হিসেবে প্রমাণিত হয়। 

মাদক সেবনকারী এসব পুলিশ সদস্যরা জেলার বিভিন্ন থানা ও ক্যাম্পে কর্মরত ছিলেন। পুলিশ সদস্যদের ডোপ টেস্টে মাদক সেবনের বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলার পাশাপাশি প্রথম দিকে তাদের বিভিন্ন জেলায় বদলি করা হয়। তারপরও তদন্তে মাদক সেবনের বিষয়টি প্রমাণিত হওয়ায় তাদের ৮ জনকে চাকুরি থেকে বহিষ্কার করা হয়।