বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস আজ

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

শুক্রবার বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস। সঠিক ওজন ও পরিমাপের গুরুত্ব এবং এ বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে প্রতিবছর বিশ্বব্যাপী এই দিবসটি পালন করা হয়। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য ‘ডিজিটাল যুগে পরিমাপ’। এই প্রতিপাদ্য সামনে রেখে বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও যথাযোগ্য মর্যাদায় দিবসটি পালন করা হবে।

দিবসটি উপলক্ষে ওজন ও পরিমাপ বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংস্থার সব সদস্যভুক্ত দেশের মতো বাংলাদেশের জাতীয় মান সংস্থা-বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্স এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, ‘৪র্থ শিল্প বিপ্লবের যুগে কায়িক পরিশ্রমের পরিবর্তে ডিজিটাল প্রযুক্তির স্বয়ংক্রিয় যন্ত্র ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার ক্রমশ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় শিল্পকারখানায় উৎপাদিত পণ্যের সঠিক পরিমাপে ডিজিটাল প্রযুক্তির প্রয়োগ এখন সময়ের দাবি। এক্ষেত্রে ওজন ও পরিমাপের আন্তর্জাতিক পদ্ধতির একক এর ডিজিটাল প্রয়োগ ব্যবসা-বাণিজ্য সম্প্রসারণ ও সেবা সহজীকরণে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ওজন ও পরিমাপে ডিজিটাল রূপান্তর ভোক্তা সাধারণের জন্য সুফল বয়ে আনবে এবং এ লক্ষ্যে সরকার প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণ করেছি। শিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্য ও সেবার সকল ক্ষেত্রে ব্যবহৃত যন্ত্রপাতির সঠিক ওজন ও পরিমাপ নিশ্চিত করার জন্য আন্তর্জাতিক পদ্ধতির একক অনুসরণের বিকল্প নেই। পরিমাপের গতানুগতিক পদ্ধতিকে ডিজিটাল রূপান্তরের মাধ্যমে উন্মুক্ত তথ্য প্রাপ্তিসহ সঠিক পরিমাপে পণ্য ও সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করবে এবং টেকসই উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে। ওজন ও পরিমাপে ডিজিটাল রূপান্তর ভোক্তা সাধারণের জন্য সুফল বয়ে আনবে। এ লক্ষ্যে আমরা প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা নিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। ’

১৮৭৫ সালের ২০ মে ১৭টি জাতির প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে অনুষ্ঠিত মিটার কনভেনশন চুক্তির দিবসটি স্মরণীয় করে রাখার জন্য প্রতিবছর বার্ষিক কর্মসূচি হিসেবে ২০ মে বিশ্ব মেট্রোলজি দিবস পালন করা হয়। চুক্তিটি পরিমাপ বিজ্ঞানের এবং এর শিল্প, বাণিজ্যিক ও সামাজিক প্রয়োগগুলোতে বৈশ্বিক সহযোগিতার একটি অভিন্ন অবকাঠামো তৈরি করে। মিটার কনভেনশনের আসল লক্ষ্য-বিশ্বব্যাপী অভিন্ন পরিমাপ ব্যবস্থার প্রবর্তন যা- ১৮৭৫ সালের মতই আজও সমান গুরুত্ব বহন করে চলেছে।