বিরোধী দলকে সরকার কোনো কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

সরকার বিরোধী দলকে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বৃহস্পতিবার রাজধানীর বাংলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠান শেষে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর কর্মসূচিতে বাধা দেওয়া প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রাজনৈতিক দলের কোনো কর্মসূচিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে না। দল যখনই সমাবেশ করতে চাচ্ছে আমরা বা ডিএমপি কমিশনার তাদেরকে অনুমতি দিয়ে দিচ্ছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা এটুকুই বলি, জনগণের দুর্ভোগ যেন না বাড়ে, রাস্তাঘাট বন্ধ করতে পারবে না, ভাঙচুর করতে পারবে না রাজনৈতিক কর্মসূচিগুলো শান্তিপূর্ণভাবে পালন করবেন যাতে জনগণের দুর্ভোগ না হয়।’

এর বাইরে কোনো বাধা দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে সাংবাদিকদেরকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘তাদের (বিএনপি) ইচ্ছামত প্রোপাগান্ডা করছে। যা সত্যি নয় তাকে আরও রংচং দিয়ে এমনভাবে প্রচার করছেন যা আপনারাই ভালো করে জানেন।’

প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক মতাদর্শ প্রচার এবং সমাবেশ করার জন্য কোনো রাজনৈতিক দলকেই বাধা দেননি’ বলে উল্লেখ করেন আসাদুজ্জামান খান।

রোহিঙ্গা শিবিরে এপিবিএন রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে অর্থ নেওয়া হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদন নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গা ক্যাম্প আমাদের জন্য বিষফোঁড়া হবে কোনো এক সময়। এই রোহিঙ্গারা তাদের সবকিছু ফেলে এখানে চলে আসছে। যেকোনো প্রলোভনে প্রলুব্ধ হয়ে তারা যে কোনো চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পারে এটা আমরা সব সময় বলেছি। এই রোহিঙ্গারা ক্যাম্পের ভেতরে থেকে ইয়াবার ব্যবসা করে। তারা নিজেরা নিজেরা গোলাগুলি করছে মারামারি করছেন প্রতিদিনই মারামারি করছে।’ মন্ত্রী বলেন, ‘রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আমাদের ডিজিএফআইয়ের এক কর্মকর্তাকে তারা মেরে ফেলেছে নৃশংসভাবে তারা হত্যা করেছে। গতকালও গোলাগুলি হয়েছে। বাড়িঘর পুড়িয়ে দিচ্ছে।’

‘রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিভিন্ন গ্রুপ ও ছাত্র কাঁটাতারের বেড়া কেটে এখান থেকে বের হয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা নিয়ে আসছে’ জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সেখানে আমাদের এপিবিএন কাজ করছে। রুটিন ওয়ার্ক করার জন্য এপিবিএন সেখানে আছে। এপিবিএন নিয়ে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ তাদের প্রতিবেদনে যেসব কথা বলেছে, এগুলো আমার মনে হয় তথ্যভিত্তিক নয়।’

তাদের আরও বেশি করে দেখে এসে এ সব প্রতিবেদন করা উচিত বলে মনে করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।