‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী

img

বিনোদন প্রতিবেদক:

অবশেষে ২০১৮ সালের ‘মিস ওয়াল্ড বাংলাদেশে’র দেখা পাওয়া গেল। তিনি জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। পিরোজপুরের মেয়ে ঐশী সবে এবার এইচএসসি পাশ করেছেন। ভবিষ্যতে তিনি মানবসেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে চান এবং বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে নিজেকে কাজে লাগাতে চান। ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ ২০১৮’ নির্বাচিত হওয়ার পর তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় এমনটাই জানান শোবিজের নয়া এ সুন্দরী।  

গত ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে এফডিসিতে শুরু হওয়া এবারের প্রতিযোগিতায় সারা দেশ থেকে অংশগ্রহণকারী হাজারো প্রতিযোগী থেকে অডিশন, সিলেকশন, পারফরম্যান্সসহ বিভিন্ন রাউন্ডে ধাপে ধাপে বাছাই প্রক্রিয়া শেষে সেরা ১০ সুন্দরীকে বাছাই করা হয়েছিল। তারা হলেন- নাজিবা বুশরা, জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী, সুমনা নাথ অনন্যা, মঞ্জিরা বশির তৃষা, জান্নাতুল মাওয়া, শিরিন শীলা, আফরিন লাবনী, নিশাদ নাওয়ার সালওয়া, ইসরাত জাহান সাবরিন এবং স্মিথা টুম্পা।

গত বছরের মতো এ বছরেরও ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছিল অন্তর শোবিজ। গ্র্যান্ড ফিনালের আসর বসেছিল ঢাকার বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারের রাজদর্শন মিলনায়তনে। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন আজরা মাহমুদ, সনিকা ও নিরব। সন্ধ্যা ৭টা ৪০ মিনিটে শুরু হওয়া অনুষ্ঠান যখন রাত পৌনে ১২টায় শেষ হচ্ছিল তখন উপস্থাপক ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হিসেবে ঐশীর নাম ঘোষনা করেন। তার মাথায় মুকুট পরিয়ে দেন অন্তর শোবিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাসরিন চৌধুরী।

ঐশীই চলতি বছরের ডিসেম্বরে চীনের সানাইয়া সিটি এরেনায় অনুষ্ঠিতব্য ‘মিস ওয়ার্ল্ড’-এর মূল প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করবেন। এবারের আসরে শুরু থেকেই মূল বিচারকের দায়িত্ব পালন করেন কন্ঠশিল্পী শুভ্রদেব, অভিনেত্রী তারিন, মডেল ও অভিনেতা খালেদ সুজন, মডেল ইমি ও ব্যরিস্টার ফারাবী। তবে গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠানে তাদের সঙ্গে আইকন বিচারক হিসেবে ছিলেন মাইলস ব্যান্ডের শাফিন আহমেদ, তার ভাই হামিন আহমেদ এবং নৃত্যশিল্পী আনিসুল ইসলাম হিরু।

এ বছরের ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ ঐশীর গ্রুমিং চলবে লম্বা সময় ধরে। দেশি কোরিওগ্রাফারের পাশাপাশি ভারতের আন্তর্জাতিক মানের প্রশিক্ষক নয়নিকা চৌধুরী তাকে গ্রুমিং করাবেন। নয়নিকা চৌধুরী দুই মাসের জন্য ঢাকায় আসবেন। পুরো সময়টাতেই তিনি ঐশীকে প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ দেবেন। প্রস্তুত করে তুলবেন আগামী ডিসেম্বরে চীনের সানাইয়া সিটি এরেনায় অনুষ্ঠিতব্য ‘মিস ওয়ার্ল্ড’-এর মূল প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য।

তবে গত বছরের মতো এবারও কিন্তু বিতর্ক পিছু ছাড়েনি। গত আসরে ফলাফল ঘোষনার পরই শুরু হয়েছিল তুমুল বিতর্ক। আয়োজক কর্তৃপক্ষ ও বিচারকদের দ্বন্ধে মঞ্চে ঘোষিত চ্যাম্পিয়ান জান্নাতুল নাঈম এভ্রিলের নাম শেষ পর্যন্ত সংবাদ সম্মেলন করে বদলাতে হয়েছিল। বিয়ের খবর গোপন করে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ায় এভ্রিলকে সরিয়ে নতুন ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হিসেবে পুরান ঢাকার মেয়ে জেসিয়া ইসলামের নাম ঘোষনা করা হয়েছিল।  

কিন্তু এবার তো আরও এক ধাপ এগিয়ে। গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হওয়ার আগেই চলতি বছরের ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশে’র নাম মানুষের মুখে মুখে ঘুরছিল। সারাদিন ধরে শোবিজের আকাশে একটাই গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল, এ বছরের ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ হবেন জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী। অনুষ্ঠানস্থলে ঢোকার পরও অনেকেই বলাবলি করছিলেন, ‘ফলাফল তো জানাই আছে, ‘মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ ঐশী।’