শ্রীলঙ্কায় দুই শতাধিক সেনা মোতায়েন, জরুরি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী

img

আর্ন্তজাতিক প্রতিবেদক:

শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ হামলার ঘটনায় ১৩৮ জন নিহত ও ৫০০ শ’র  অধিক মানুষ আহত হয়েছেন। মর্মান্তিক এই ঘটনার পর জরুরি নিরপত্তা হিসেবে গির্জাগুলোতে সেনাবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।

শ্রীলঙ্কান সংবাদমাধ্যম ‘সিলন ডেইলি নিউজ’ জানিয়েছে, যেসব গির্জায় বোমা হামলার ঘটনা ঘটেছে সেসব স্থানে দুই শতাধিক সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। 

ঘটনার পরপরই এক বিবৃতিতে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা জনগণকে শান্ত থাকতে এবং সেইসঙ্গে এ বর্বর ঘটনার তদন্তে দেশটির কর্তৃপক্ষকে সমর্থন জানাতে আহ্বান জানিয়েছেন।

এদিকে, হামলার এ ঘটনার পর শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহে জরুরি বৈঠকে বসেছেন। রবিবার ( ২১ এপ্রিল) সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে হামলার ঘটনা ঘটে। এরপরই জরুরি বৈঠক ডাকেন তিনি। ফ্রান্সভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ‘এএফপি’ এ খবর জানিয়েছে। 

খবরে বলা হয়, দেশটির অর্থনৈতিক সংস্কারবিষয়ক মন্ত্রী হার্শা ডি সিলভা বলেন, কয়েক মিনিটের মধ্যে জরুরি বৈঠক ডাকা হয়েছে। জরুরি উদ্ধার তৎপরতা চলছে।

ভয়াবহ এই হামলার ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৩৮ জন নিহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। আর আহত হয়েছেন পাঁচশ’র অধিক। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ‘এনডিটিভি’ এ তথ্য জানিয়েছে। 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানায়, শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বো ও কলম্বোর বাইরে মোট ছয়টি স্থানে এসব বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এরমধ্যে কোচিচিকাদে, কুতুয়াপিটায়ে এবং বাত্তিকালোয়ার তিনটি চার্চ হামলার লক্ষ্যবস্তু হয়েছে। এছাড়াও কলম্বোর সাংরি লা, সিনামোন গ্রান্ড এবং কিংসব্যুরি হোটেলেও হামলার ঘটনা ঘটেছে। 

এখন পর্যন্ত এ হামলার দায় কেউ স্বীকার করেনি বলেও জানিয়েছে বিবিসি।

এদিকে, খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুরো এলাকা ঘিরে ফেলেছে পুলিশ। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছেন তারা। ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে কলম্বো পুলিশ। তবে কেন এই বিস্ফোরণ ঘটেছে সেই সম্পর্কেও কিছু বলেনি তারা।