বিএন‌পি নিজেরাই নিজেদেরকে ‘অবৈধ’ বলছে : তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

তথ্যমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, ‘বিএন‌পির নির্বা‌চিত সাংসদরা শপথ নেয়ার পরও মহান সংস‌দে দাঁড়ি‌য়ে সংসদ‌কে অবৈধ বল‌ছে। তাহলে কি তারা নিজেরাও অবৈধ? আসলে তারা সংসদকে নয়, বরং নিজেরাই নিজেদেরকে অবৈধ বল‌ছে।’

২০ জুন বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে এম এ হান্নান পরিষদের উদ্যোগে এম এ হান্নানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে বিজয়ী হয়ে শপথ নিয়েছে। তারপর সংসদে দাঁড়িয়ে তাদের একজন সংরক্ষিত মহিলা এমপি (রুমিন ফারহানা) সেই সংসদকেই অবৈধ বলছে। এর মধ্য দিয়ে তারা যে নিজেরাই অবৈধ সেটাই সংসদে দাঁড়িয়ে ঘোষণা করছে।’

‌বিএনপির সমালোচনা করে তি‌নি ব‌লেন, ‘নির্বাচন, সংসদ নিয়ে প্রতিদিনই একই কথা মানুষ এখন আর নেয় না। আমার মনে হয় পশু-পাখিও যদি তাদের ভাষা বুঝতে পারতো তাহলেও এগুলো বিশ্বাস করতো না। আর বিএনপি দলটাই তো আগাগোড়া অবৈধ, কারণ ক্ষমতা দখল করে ক্ষমতার উচ্ছিষ্ট বিলিয়ে জিয়াউর রহমান যে কর্মকাণ্ড করেছেন সেগুলোর সবই তো অবৈধ।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘হাইকোর্টের রায় অনুযায়ী বিএনপি একটি অবৈধ দল। সেই অবৈধ দল হয়েও সংসদে দাঁড়িয়ে সংসদকে অবৈধ বলছে তারা। এটা ইতিহাস বিকৃতি। বিকৃত ইতিহাস বেশিদিন টিকবে না। বর্তমান প্রজন্ম সঠিক ইতিহাস জানতে পারছে। সুতরাং ইতিহাস বিকৃত করে আর কোনও কাজ হ‌বে না।’

বিএনপিকে এখন রাজপথে খুঁজে পাওয়া যায় না মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘বিএনপিকে এখন পাওয়া যায় শুধু সংবাদ সম্মেলনে ও তাদের পার্টি অফিসে। রিজভী সংবাদ সম্মেলন ডাকলে ও কথা বল‌লে বোঝা যায় বিএনপি আছে। এছাড়া বিএনপি আছে কিনা তো বোঝা যায় না।’

বেগম জিয়ার কারাবাস ও জামিন প্রসঙ্গে বিএনপির প্রতিক্রিয়ার জবাবে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি বারবারই বলে, সরকারের হস্তক্ষেপে নাকি খালেদা জিয়ার জামিন হচ্ছে না। সরকার কখনও আইনি প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করে না। খালেদা জিয়ার মামলায় সরকার যদি হস্তক্ষেপ করতো তাহলে তিনি যেসব মামলায় জামিন পেয়েছেন সেই মামলাগুলোতে জামিন পেতেন না। দেশের আইন ও আদালত সঠিকভাবে কাজ করছে। সুতরাং এসব মিথ্যাচার না ছড়িয়ে আপনাদের (বিএনপি) আইনজীবীদের নি‌জে‌দের মধ্যে যে প্রতিযোগিতা আছে তা ঠিক করে আরও শক্তিশালী হোন।’

আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিনের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন- আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল ও অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।