রাজধানীতে জাল টাকা তৈরির কারখানার সন্ধান,আটক ১০

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

রাজধানীর রামপুরার উলন রোডে জাল টাকা তৈরির একটি কারখানার সন্ধান পেয়েছে  পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের একটি দল সেখান  থেকে সাড়ে ২৫ লাখ টাকার জাল নোট উদ্ধার করেছে ।

ঈদুল আজহায় দুই কোটি জাল টাকা ছড়িয়ে দেয়ার মিশন নিয়ে কারখানা স্থাপন করে একটি চক্র। চক্রের প্রধান নাজমুল হোসেন নিজাম ও তাজুল ইসলাম লিটন।

সাত দিন আগে কারখানাটি সাভারের ধামরাই থেকে ঢাকার রামপুরার উলন রোডের একটি বাড়িতে স্থানান্তর করে তারা।

এ কারখানায় ১০০০ ও ৫০০ টাকার জাল নোট তৈরি শুরু করেছিল। প্রতিদিন এ কারখানায় ৩ থেকে ৪ লাখ জাল টাকা তৈরি হচ্ছিল। সেই টাকা বিপণনও শুরু করে চক্রের সদস্যরা।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ উত্তর বিভাগের ডিসি মসিউর রহমান জানান, মঙ্গলবার দুপুরে উলন রোডের চারতলা একটি ভবনে কারখানার সন্ধান পেয়ে অভিযান চালায়। ঐ ভবনের চতুর্থ তলায় জাল টাকা তৈরি করে আসছিল চক্রটি। অভিযানে দুই নারীসহ ৬ জনকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।  টাকার পাশাপাশি ভারতীয় রূপিও তৈরী করে আসছিল চক্রটি। অভিযানে ল্যাপটপ, প্রিন্টারসহ জাল নোট তৈরীর নানা সরঞ্জাম জব্দ হয়।

কোরবানির গরু কেনাবেচায় জাল টাকা ছড়িয়ে দিতে সারা দেশ থেকে তাদের কাছে ব্যাপক চাহিদা আসে। এ চক্রটি ঈদের আগে সারা দেশে দুই কোটি জাল টাকা ছড়িয়ে দেয়ার পরিকল্পনা করে। এ চক্র বিভিন্ন ট্রাভেল এজেন্সির মাধ্যমেও জাল টাকা ছড়িয়ে দিচ্ছে বলে জানিয়েছে।

 চক্রের দুই প্রধান নিজাম-লিটন ও ফাতেমাসহ ছয়জনকে ২৫ লাখ জাল টাকা এবং জাল টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার অন্য তিনজন হল : জয়নাল আবেদীন, শরীফ এবং তার স্ত্রী শারমিন আক্তার। পরে নিজামের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে হাতিরঝিল এলাকা থেকে চক্রের আরও চার সদস্যকে ১২ লাখ জাল টাকাসহ গ্রেফতার করা হয়। তারা হল : জামির শিকদার, মেহেদী হাসান পলাশ, জাহাঙ্গীর আলম ও রমিছুর রহমান সজল।