‘ফিরোজা বেগম স্বর্ণপদক’ পেলেন শিল্পী ফরিদা পারভিন

img

নিজস্ব প্রতিবেদক:

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রবর্তিত ‘ফিরোজা বেগম স্বর্ণপদক’ পেলেন বরেণ্য লালন গীতি শিল্পী ফরিদা পারভিন।

রবিবার বিকালে এক অনুষ্ঠানে ফরিদা পারভিনকে স্বর্ণপদক এবং পুরস্কার স্বরুপ এক লাখ টাকা তুলে দেন বিশ্ববিদ্যলয় উপচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এ অনু্ষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

উপমহাদেশের প্রখ্যাত নজরুল সংগীত শিল্পি ফিরোজা বেগমের শিল্পী সত্ত্বার প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ২০১৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রবর্তন করে ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ও পুরস্কার। জুরিবোর্ড প্রতি বছর একজন দেশ বরেণ্য শিল্পীকে এই স্বর্ণপদকের জন্য মনোনিত করেন। একই সাথে বিশ্ববিদ্যালয়ের সংগীত বিভাগের সর্বোচ্চ সিজিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীকেও এই স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়।

তারই ধারাবাহিকতাই এ বছর বরেণ্য শিল্পী হিসেবে ফরিদা পারভিনকে এবং সংগীত বিভাগের সর্বোচ্চ সিজিপিএ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী খন্দকার অনিকা ইসলামকে মনোনীত করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫২তম সমাবর্তনে খন্দকার অনিকা ইসলামকে এই স্বর্ণপদক দেওয়া হবে।

ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ট্রাস্ট ফান্ডের ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য় ড. মো. আখতারুজ্জামান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন কলা অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আবু মো. দেলোয়ার হোসেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. এনামুজ্জামানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে স্বাগত ভাষণ দেন ফিরোজা বেগমের সহোদর, এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এবং ট্রাস্ট ফান্ডের দাতা এম আনিস উদ দৌলা।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান বলেন, বাংলাদেশ এবং বঙ্গভূমি যাদের নিয়ে গর্ব করে তার মধ্যে একজন হলেন ফিরোজা বেগম। ফিরোজা বেগমের গানের মধ্যে সুর আছে, লয় আছে, আছে বক্তব্যও। উপচার্য় নতুন প্রজন্মকে এই বক্তব্য গ্রহণের আহবান জানিয়ে বলেন, আমাদের গানের ভিতরের বার্তা গ্রহণ করতে হবে। তাহলেই  ফিরোজা বেগম হওয়া যাবে।

ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদক ট্রাস্ট ফান্ড পৃষ্টপোষকতা করার জন্য আখতারুজ্জামান এসিআই ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যানকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, এসিআই ফাউন্ডেশনের এই উদ্যেগের কারণে আগামী প্রজন্মের সংগীত শিল্পিরা অনুপ্রাণিত হবেন।

অনুষ্ঠান শেষে অভিব্যক্তি প্রকাশ করতে গিয়ে ফরিদা পারভিন বলেন, আমার কাছে মনে হচ্ছে এই স্বর্ণপদক কোন অংশেই জাতীয় একুশে পদক পুরস্কারের চেয়ে কম নয়। আমি যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন ফিরোজা আপার স্মৃতি ধরে রাখব।

পুরস্কারের জন্য তাঁকে মনোনীত করাই জুরিবোর্ডকে এবং এসিআই ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানান।