আজ পবিত্র হজ: আরাফাতের ময়দান মুখর লাব্বাইক ধ্বনিতে

img

ধর্ম ডেস্ক:

আজ শনিবার পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। শুক্রবার মিনায় পৌঁছেছেন হাজীরা। সেখান থেকে আজ ভোরে আরাফাত ময়দানে পৌঁছবেন তারা। সেখানে ফজরের নামাজের সময় থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অবস্থান করবেন। পালিত হবে আরাফাত দিবস।

আকুল হৃদয়ে মহান রাব্বুল আলামিনকে বলবেন, ‘লাব্বাইক আল্লাহুম্মা লাব্বাইক, লাব্বাইক লা শারিকা লাকা লাব্বাইক, ইন্নাল হামদা ওয়াননি’মাতা লাকা ওয়াল মুলক।’ আমি হাজির, হে আল্লাহ আমি হাজির। তোমার কোনো শরিক নেই; সব প্রশংসা ও নিয়ামত শুধু তোমারই, সব সাম্রাজ্যও তোমার।

সৌদি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, হজযাত্রীদের জন্য মিনায় স্থাপন করা হয়েছে ৩ লাখ ৫০ হাজারের বেশি তাঁবু। সেখান থেকে শনিবার আরাফাত ময়দানে যাবেন তারা। আরাফাতের ময়দানে হজের মূল খুতবা এবং জোহর ও আসর নামাজ একসঙ্গে আদায় করবেন। সন্ধ্যায় মুজদালিফায় গিয়ে আবারো মাগরিব ও এশার নামাজ আদায় করবেন এবং পাথর সংগ্রহ করবেন। রাতে মুজদালিফায় খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করবেন হাজিরা। ফজরের নামাজ আদায় করে মুজদালিফা থেকে আবার মিনায় ফিরে আসবেন। মিনায় এসে জামারায়ে আকাবায় (বড় শয়তানকে) কঙ্কর বা ছোট পাথর মারা, কোরবানি ও মাথা মুড়িয়ে বা চুল ছেঁটে মক্কায় কাবা শরিফ তাওয়াফ করবেন।

আরব নিউজের খবরে বলা হয়, বিশ্বের মুসলিম জনগোষ্ঠীর সবচেয়ে ধর্মীয় জমায়েত হচ্ছে হজ। প্রতিবছর হজ পালনে সৌদি আরব যাত্রা করেন লাখ লাখ মুসলিম।

প্রতি বছরের মতো এবারো হজযাত্রীদের জন্য মোতায়েন করা হয়েছে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা। সৌদি আরবের নিরাপত্তা বাহিনীর মুখপাত্র বাসাম আত্তিয়া জানান, ‘আল্লাহর বান্দা’দের সুরক্ষার জন্য রাষ্ট্রের সকল হাতিয়ার মোতায়েন করা হয়েছে। আমরা তাদের সেবা করতে পেরে গর্বিত।

সব মিলিয়ে চলতি বছর হজ পালন করছেন প্রায় ২৫ লাখ মুসলিম। এদের বেশিরভাগই বিভিন্ন দেশ থেকে সৌদি আরবে যাত্রা করেছেন। সৌদির হজ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা হাতিম বিন হাসান কাদি বলেন, ১৮ লাখ হজযাত্রীর অনলাইনে কোনো প্রকার মধ্যস্থতাকারী ছাড়াই ভিসা দেয়া হয়েছে।

কাবায় পরানো হবে নতুন গিলাফ : সৌদি প্রেস এজেন্সি জানিয়েছে, প্রতিবছরের মতো আরাফাতের দিনে (৯ জিলহজ) আজ পবিত্র কাবা আচ্ছাদিত হবে নতুন গিলাফে। পবিত্র মসজিদের (মসজিদুল হারাম) ও মসজিদে নববীর সভাপতি শেখ ড. আবদুল রহমান বিন আবদুল আজিজ আল-সুদাইসের তত্ত্বাবধানে আজ ফজরের নামাজের পর নতুন এ গিলাফ পরানো হবে।

এবারের গিলাফটি তৈরি করা হয়েছে সিল্কের ৬৭০ কেজি সুতা, স্বর্ণের ১২০ কেজি সুতা এবং রুপার ১০০ কেজি সুতা দিয়ে। কালো জমিনের ওপর অঙ্কিত হয়েছে সোনালি আরবি হরফে কোরআনের আয়াত। বাদশাহ আবদুল আজিজ কমপ্লেক্সে ১৬০ শিল্পী ও কারিগর এ গিলাফটি তৈরি করেছেন।

নতুন গিলাফ পরানোর সময় পুরনো গিলাফ সরিয়ে ফেলা হয়। তা কেটে মুসলিম বিশ্বের সরকারপ্রধানদের দেয়া হয় উপহার। বাংলাদেশে বায়তুল মোকাররম মসজিদে গিলাফের একটি টুকরো টানানো রয়েছে।