নিখোঁজ শিশুর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

img

 

মফস্বল প্রতিবেদকঃ 

কাশিয়ানী উপজেলার চাপ্তা রেল স্টেশন থেকে নিখোঁজ হয়েছিল ছয় বছর বয়সী শিশু সুমা। তার সন্ধানে সব জায়গায় খোঁজাখুঁজি করে পরিবারের লোকজন। অবেশেষে গভীর রাতে পরিত্যক্ত একটি জমি থেকে ওই শিশুর মরদহে উদ্ধার করা হয়।

এই ঘটনাটি ঘটেছে গোপালগঞ্জের কাশিয়ানী উপজেলায়। বুধবার দিবাগত রাত তিনটার দিকে উপজেলার কুসুমদিয়া গ্রামের পরিত্যক্ত একটি জমি থেকে শিশুটির লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। শিশুটিকে খুনে জড়িত সন্দেহে দুইজনকে আটক করা হয়েছে।

নিহত সুমা খানম কাশিয়ানী উপজেলার রাতইল ইউনিয়নের চাপ্তা গ্রামের মো. মিজান শেখের মেয়ে। সে চাপতা ২২ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী।

কাশিয়ানী থানার উপপরিদর্শক গনেশ বিশ্বাস জানান, গতকাল বুধবার কাশিয়ানী উপজেলার চাপ্তা রল স্টেশন থেকে নিখোঁজ হয় সুমা। এরপর থেকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও সুমার কোনও সন্ধান না পেয়ে বিষয়টি পুলিশকে জানানো হয়। ভোর রাত ৩নটার দিকে কাশিয়ানী উপজেলার কুসুমদিয়া গ্রামের পরিত্যক্ত একটি ভিটায় সুমার মরেদেহ পড়ে থাকতে দেখে এলাকাবাসী। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠায়

কাশিয়ানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আজিজুর রহমান জানান, নিহত শিশু সুমার গলা এবং হাত ও পায়ের রগ কেটে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুইজনকে আটক করা হয়েছে। হত্যার কারণ সম্পর্কে এখনই কিছু বলা যাচ্ছে না। তদন্ত চলছে।